Rahmania Madrasah Sirajganj

লকডাউনে “মুভমেন্ট পাস” ছাড়া ঘর থেকে বের হলে গ্রেফতার করবে পুলিশ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে আগামী বুধবার থেকে সাত দিন সারা দেশে সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। এতে চলাচলের ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। কিন্তু এই প্রাদুর্ভাবের মধ্যে যাদের জরুরিভিত্তিতে বাইরে যাওয়া প্রয়োজন, তাদের যাতায়াত নিশ্চিত করতে এবং মানুষের অনিয়ন্ত্রিত ও অপ্রয়োজনীয় চলাচল রোধ করতে ‘মুভমেন্ট পাস’ এর ব্যবস্থা করছে পুলিশ।

আজ সোমবার পুলিশ সদরদপ্তরের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) সোহেল রানা জানান, সদর দপ্তরের আইসিটি উইংয়ের সমন্বয়ে শুরু হতে যাচ্ছে ‘মুভমেন্ট পাস’ কার্যক্রম। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘মুভমেন্ট পাস অ্যাপ’ এর উদ্বোধন করবেন আইজিপি। তিনি আরও জানান, জরুরি পণ্য পরিবহন, সেবাদাতা, ব্যবসায়ী ও চাকরিজীবীদের যাচাই-বাছাই করে দেওয়া হবে এই পাস।

এই ‘মুভমেন্ট পাসধারী ব্যক্তিরা ঢাকার ভেতরে এবং বাইরে-যেকোনো সড়কে নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারবেন। তবে সবাই এই পাস পাচ্ছেন না। শুধু জরুরি সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের দেওয়া হবে এ পাস। তারা এই পাস ব্যবহার করে নিজেদের কাজে বের হতে পারবেন।

আগামীকাল মঙ্গলবার রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘মুভমেন্ট পাস’ অ্যাপ্লিকেশনটির উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

এ ছাড়া মুদি দোকানে কেনাকাটা, কাঁচাবাজার, ওষুধপত্র, চিকিৎসাকাজে নিয়োজিত, কৃষিকাজ, পণ্য পরিবহণ ও সরবরাহ, ত্রাণ বিতরণ, পাইকারি/খুচরা ক্রয় পর্যটন, মৃতদেহ সৎকার, ব্যবসা ও অন্যান্য ক্যাটাগরিতেও দেওয়া হবে এই পাস। যাদের বাইরে চলাফেরা প্রয়োজন কিন্তু কোনো ক্যাটাগরিতেই পড়েন না, তাদের অন্যান্য ক্যাটাগরিতে পাস দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করা হবে। দেশের যেকোনো নাগরিক এ ‘মুভমেন্ট পাস’ অ্যাপসটির মাধ্যমে কয়েকটি তথ্য সরবরাহ করে খুব সহজেই সংগ্রহ করতে পারবেন।

এআইজি বলেন, এ অ্যাপটি ব্যবহার করলে একদিকে যেমন জরুরি প্রয়োজনে নাগরিকদের চলাচল নিশ্চিত করা যাবে, অন্যদিকে মানুষের অপ্রয়োজনীয় ও অনিয়ন্ত্রিত চলাচলও বন্ধ করা যাবে। পাশের জন্য আবেদনের নিয়ম হলো আবেদনকারীকে- movementpass.police.gov.bd-এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে পাস এর জন্য আবেদন করতে হবে;. শুরুতে একটি সক্রিয় মোবাইল ফোন নম্বর দিতে হবে। আবেদনকারী কোথা থেকে কোথায় যাবেন, তা জানতে চাওয়া হবে। সঙ্গে সেই তথ্য প্রদান করতে হবে।

এরপর একটি নির্দিষ্ট ফর্মে আবেদনকারীর নিকট থেকে কিছু তথ্য চাওয়া হবে। সেইসব তথ্য ধাপে ধাপে প্রদান করতে হবে। এরপর আপনার একটি ছবি আপলোড করে ফর্মটি জমা দিতে হবে; জমা দেওয়া ফর্মে আবেদনকারীর প্রদত্ত তথ্যাবলীর ভিত্তিতে মুভমেন্ট পাস ইস্যু করা হবে। ওয়েব সাইট থেকেই পাসটি ডাউনলোড করে সংগ্রহ করা যাবে; চলাচলের সময় কর্তব্যরত পুলিশ অফিসারকে পাসটি প্রদর্শন করতে হবে। করোনা সংক্রমণের ভয়াবহ বিস্তার রোধে চলমান লকডাউনে প্রয়োজনীয় চলাচল নিশ্চিত করতে মুভমেন্ট পাস অ্যাপসটি ব্যবহারের মাধ্যমে পাস সংগ্রহ করার জন্য দেশের সম্মানিত নাগরিকদের প্রতি অনুরোধ জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

পুলিশ সদরদপ্তর সূত্র জানায়, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত সপ্তাহব্যাপী সারা দেশ কঠোরভাবে লকডাউনে যাচ্ছে। লকডাউন বাস্তবায়নে কঠোর ভূমিকা পালন করবে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এ সময় জনমানুষকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে করোনা ভ্যাকসিন নিতে যারা বাসা থেকে বের হবেন তাদের জন্য ছাড় দেওয়া হলেও জরুরি প্রয়োজনে বাসা থেকে বের হয়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে লাগবে মুভমেন্ট পাস। যে কেউ তার প্রয়োজনের বিষয় জানিয়ে এ অ্যাপে আবেদন করলেও যৌক্তিক কারণে নির্দিষ্ট গন্তব্যে যাতায়াত করতে পাওয়া যাবে পাস। সড়কে কোথাও চলাচলের কারণে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হলে এ পাস দেখালেই তার পরিচয় নিশ্চিত হয়ে যেতে দেওয়া হবে।

এ ছাড়া কোনো ব্যক্তির বাবা-মা/পরিবারের কেউ যদি অন্য জেলায় মারা যান, তবে তিনি অ্যাপের মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট কারণ দেখিয়ে পাসের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদন যৌক্তিক হলে মুহূর্তেই পাস পেয়ে যাবেন তিনি।

পড়েছেনঃ 45 জন