আরবী তারিখঃ এখন ৫ শাওয়াল ১৪৪৫ হিজরি মুতাবিক ১৪ এপ্রিল ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রোজ রবিবার, সময় রাত ৮:১১ মিনিট
এলানঃ-
১৪৪৫-১৪৪৬ হিজরী, ২০২৪-২০২৫ ইং এর মাসিক সুন্নতী ইজতেমা সমূহ
* ২৫ এপ্রিল ২৪ ইং বৃহস্পতিবার মাগরিব-ইশা মাদরাসার সকলের জন্য
* ৩০-৩১ মে ২৪ ইং বৃহস্পতিবার ফজর-শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত সালেকীনদের জন্য
* ২৭ জুন ২৪ ইং বৃহস্পতিবার মাগরিব-ইশা মাদরাসার সকলের জন্য
* ২৫-২৬ জুলাই ২৪ ইং বৃহস্পতিবার ফজর-শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত সালেকীনদের জন্য
* ২৯ আগষ্ট ২৪ ইং বৃহস্পতিবার মাগরিব-ইশা মাদরাসার সকলের জন্য
* ২৬-২৭ সেপ্টেম্বর ২৪ ইং বৃহস্পতিবার ফজর-শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত সালেকীনদের জন্য
* ২৪ অক্টোবর ২৪ ইং বৃহস্পতিবার মাগরিব-ইশা মাদরাসার সকলের জন্য
* ২৮-২৯ নভেম্বর ২৪ ইং বৃহস্পতিবার ফজর-শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত সালেকীনদের জন্য
* ২৬ ডিসেম্বর ২৪ ইং বৃহস্পতিবার মাগরিব-ইশা মাদরাসার সকলের জন্য
* ৩০-৩১ জানুয়ারী ২৫ ইং বৃহস্পতিবার ফজর-শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত সালেকীনদের জন্য
* ২৭ ফেব্রুয়ারী ২৫ ইং বৃহস্পতিবার মাগরিব-ইশা মাদরাসার সকলের জন্য
* মার্চ ২৫ ইং এজতেমা সালেকীনদের জন্য

রসুলুল্লাহ সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের যুগে শুরতাহ বা পুলিশগনের বৈশিষ্ট্য, আর এ যুগের পুলিশ?

পুলিশী দায়িত্ব পালনে একদল লোক রসুলুল্লাহ সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর রাষ্ট্রে বিদ্যমান ছিল। অপরাধ দমন, অপরাধীদের শাস্তি বিধান, বাজার পরিদর্শন,মূল্য নিয়ন্ত্রন, পণ্যের গুণগত মান ও সঠিক পরিমাপের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ,প্রতারণা বিশৃঙ্খলারোধ সাধারণত এই বিভাগের দায়িত্ব ছিল। রসুলুল্লাহ সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের যুগে যারা এ দায়িত্বটি পালন করেছেন তাদের প্রায় সকলেই স্বেচ্ছায় বিনা পারিশ্রমিকে এ দায়িত্ব পালন করেছেন। তবে যাদের আর্থিক অনটন ছিল বায়তুল মাল থেকে তাদের ব্যয়ভার বহন করা হত। হযরত কায়েস ইবনে সা’দ রা. ছিলেন এ বিভাগের প্রধান। অপরাধীদের শাস্তি দান ও মৃত্যুদন্ত কার্যকর করার দায়িত্বে ছিলেনঃ
1.হযরত আলী রাঃ
2.হযরত যুবায়ের রাঃ
3.হযরত মিকদাদ রাঃ
4.হযরত মুহাম্মাদ ইবনে মাসলামা রাঃ
5.হযরত আসিম ইবনে সাবিত রাঃ
6.হযরত যাহহাক ইবনে সুফিয়ান রাঃ ।

Loading