আরবী তারিখঃ এখন ১৫ জিলকদ ১৪৪৫ হিজরি মুতাবিক ২৪ মে ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রোজ শুক্রবার, সময় দুপুর ১:১১ মিনিট
এলানঃ-
>>> ১৪৪৫-১৪৪৬ হিজরী, ২০২৪-২০২৫ ইং তে সালেকীনদের জন্য সুন্নতী ইজতেমা সমূহ <<<
* মাহে যিলক্বদের প্রথম সপ্তাহের বৃহস্পতিবার ফজর থেকে শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত। (আসন্ন)
* মাহে রবিউল আউয়ালের শেষ সপ্তাহের বৃহস্পতিবার ফজর থেকে শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত। (আসন্ন)
* মাহে রজবের প্রথম সপ্তাহের বৃহস্পতিবার ফজর থেকে শুক্রবার মাগরিব পর্যন্ত। (আসন্ন)
.....................................................................
>> ১৪৪৫-১৪৪৬ হিজরী, ২০২৪-২০২৫ ইং তে মজলিসে আইম্মাহ সমূহ (ইমাম-মুআজ্জিনদের জন্য) <<<
* মাহে শাউয়ালের শেষ শনিবার সকাল ৮টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত। (হয়ে গেছে)
* মাহে মুহাররমের শেষ শনিবার সকাল ৮টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত। (আসন্ন)
* মাহে রবিউস সানীর শেষ শনিবার সকাল ৮টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত। (আসন্ন)
* মাহে রজবের শেষ সপ্তাহে বিষয় ভিত্তিক সেমিনার। (আসন্ন)
*** প্রতি আরবী মাসের শেষ বৃহস্পতিবার মাদরাসার সকলের জন্য মাসিক সুন্নতী ইজতেমা।
*** প্রতি বছর ২০ শাবান থেকে ৩০ রমাযানুল মুবারক পর্যন্ত ৪০ দিন, রমাযানুল মুবারক এর প্রথম ১৫ দিন, রমাযানুল মুবারক এর শেষ দশক হযরাতে সালেকীনদের জন্য এতেকাফ।

মুসাফাহা ও মুআনাকার আদব ও সুন্নত সমূহ

মুসাফাহার সুন্নত সমূহ

১. সাক্ষাতের সময় মুসাফাহা করা সুন্নত। দেখুনঃ বুখারী শরীফঃ ২/৯২৬
২. উভয় হাত দ্বারা মুসাফাহা করা ও يَغْفِرُ اللهُ لَنَا وَ لَكُمْ দুআটি পড়া। দেখুনঃ বুখারী শরীফঃ ৫৮২৯, জামিউস সগীরঃ ৪৮৪
৩. মুসাফাহা করার সময় নিজের হাত নিজের থেকে টেনে না নেয়া অর্থাৎ তাড়াহুড়া না করে। দেখুনঃ তিরমিজি শরিফঃ
৪. মুসাফাহা করার সময় যার সাথে মুসাফাহা করা হচ্ছে তার আরামের দিকটি খেয়াল করা। দেখুনঃ তিরমিজি শরিফঃ
৫. যার সাথে মুসাফাহা করা হবে যদি মুসাফাহা করার মাধ্যমে তার কষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে বা কাজে ব্যস্ত থাকে, তবে তার ব্যস্ততা সত্ত্বেও তাকে মুসাফাহা করাতে বাধ্য করা বেআদবি। এজন্য অবস্থা দেখে মুসাফাহা করা অন্যথায় সওয়াবের বদলে গুনাহ হওয়ার সম্ভাবনা আছে। দেখুনঃ সালাম ও মুসাফাহা কে আদাব
৬. পুরুষদের মতো নারীদেরকেও অন্য নারীদের সাথে মুসাফাহা করা সুন্নত। দেখুনঃ গুলজারে সুন্নতঃ ১৭
৭. বৈঠকে গিয়ে বৈঠকের সকলের সাথে আলাদা আলাদা মুসাফাহা করার প্রয়োজন নেই। যার সাথে মুসাফাহা করা হবে তার আরামের বিষয়টি খেয়াল রাখা চাই। দেখুনঃ আদাবুল মুআশারাতঃ ৫৭-৫৮

মুআনাকার সুন্নত সমূহ

১. কোন ব্যক্তি দূর থেকে আসলে তার সাথে ভালোবাসা প্রকাশের জন্য মুআনাকা করা সুন্নত। দেখুনঃ তিরমিজি শরিফঃ ২/১০২
২. ডান দিক থেকে একবার মুআনাকা করা সুন্নত। দেখুনঃ ফাতাওয়া মাহমুদিয়া
৩. মুআনাকা বা গর্দানের সাথে গর্দান লাগানো সুন্নত। অর্থাৎ পুরো শরীর আলাদা রেখে শুধুমাত্র গর্দানের সাথে গর্দান মিলানো।
দেখুনঃ আহসানুল ফাতাওয়াঃ ৮/৪০৭
৪. মুআনাকার নামে পুরা শরীর দিয়ে আরেকজনের পুরা শরীরের সাথে আলিঙ্গন করা সর্বসম্মতিক্রমে বেদআত ও গুনাহ।
দেখুনঃ আহসানুল ফাতাওয়াঃ ৮/৪১২

Loading