Rahmania Madrasah Sirajganj

মমতা ব্যানার্জির মন্ত্রিসভায় দেওবন্দ ও জমিয়তের কে এই মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী?

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে ২১৩ টি আসনে জিতে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের মন্ত্রিপরিষদের ৪৩ সদস্যের নাম প্রকাশ করা হয়েছে। তালিকায় পূর্ণমন্ত্রী ২৪ ও প্রতিমন্ত্রী ১৯ রয়েছেন। এবং স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ১০ জন। সবমিলিয়ে ৪৩ জন শপথ নিতে চলেছেন সোমবার। পূর্ণমন্ত্রীর তালিকায় রয়েছেন জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পশ্চিমবঙ্গ শাখার সভাপতি ও দারুল উলুম দেওবন্দের সন্তান (প্রাক্তণ শিক্ষার্থী) মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী। জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের নেতা মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী সাবেক গণশিক্ষা ও গ্রন্থাগার মন্ত্রী ছিলেন।এর আগে টানা তিনবারের বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী মমতার খুব কাছের পরীক্ষিত নেতা। তিনি ভারতের মঙ্গলকোট বিধানসভা আসন থেকে টানা তৃতীয়বারের মতো জয়লাভ করলেন। মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরি ভারতীয় মুসলিমদের জাতীয়তাবাদী সামাজিক ও ধর্মীয় সংগঠন জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ পশ্চিমবঙ্গের সভাপতি। সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের (এআইটিসি) সদস্য। ভারতে জমিয়ত সরাসরি রাজনীতি ও নির্বাচন করে না। তবে জমিয়ত নেতারা নিজ সংগঠনের অনুমোদন সাপেক্ষে বিভিন্ন দলে যোগ দিয়ে সক্রিয় রাজনীতি করেন। এরই ধারাবাহিকতায় মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী ২০১৬ সালের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ জমিয়ত নির্বাচনী জোট গড়েন। ব্যক্তিগত জীবনে সাদামাটা জীবনের অধিকারী মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরি। সত্য কথা বলতে দ্বিধা করেন না। রাজনীতিবিদ হলেও রাজনীতির মারপ্যাচে তিনি নেই। তার চিন্তায় শুধু মানুষের কল্যাণ। প্রায় পাঁচ বছর মন্ত্রী হিসেবে কাটিয়েছেন, কিন্তু তার আচার-আচরণে এর কোনো প্রভাব দেখা মেলে না। ফন্দি-ফিকির করে দলের ফান্ড বাড়ানোর চেষ্টা করেননি। নিজেও অনৈতিক কোনো সুবধিা নিয়ে সম্পদ গড়েননি।

পড়েছেনঃ 52 জন