Rahmania Madrasah Sirajganj

দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে শীর্ষ আলেমদের বিবৃতি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে গত ২৬ মার্চ বায়তুল মোকাররম, হাটহাজারী ও বি.বাড়িয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে হেফাজতের কর্মসূচি এবং সংগঠনটির নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের বর্তমান প্ররিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দেশের শীর্ষ আলেমগণ।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তারা এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

বিবৃতিতে আলেমগণ বলেন, বিগত ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ এর পরিস্থিতির পরবর্তী অবস্থা দেশবাসীর সামনে স্পষ্ট। দেশের আলেম-ওলামাদের বিরুদ্ধে যেভাবে মিথ্যাচার ও মানহানিকর আচরণ করা হচ্ছে, এতে মনে হচ্ছে- আলেম-ওলামাগণ কোনো ভিনদেশী নাগরিক। এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে কেউ আল্লাহর পাকড়াও থেকে রেহাই পাবে না। নিরীহ মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষকদের উপর অন্যায়ভাবে গুলি চালিয়ে শহীদ করে দেওয়া এবং শত শত নিরাপরাধ মানুষকে জীবনের তরে পঙ্গু করে দিয়ে আবার তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে গ্রেফতার ও হয়রানি করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, আমীরে হেফাজত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে নতুন করে মিথ্যা হত্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে। হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, আরেক সহকারী মহাসচিব মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন রাজি, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজীজুল হক ইসলামাবাদী, মাওলানা ইলিয়াছ হামিদী, মুফতী শরীফুল্লাহ ও মুফতী বশিরুল্লাহ, মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীসহ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ৪ জন, ভোলায় ৭ জন, সিলেটে ৭ জন, গাজীপুরে ৪ জন, নরসিংদীতে ১ জনকে ডিবি অফিসে হয়রানি ও গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে। আমরা তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এহেন পরিস্থিতিতে ওলামা-মাশায়েখসহ দেশবাসী গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠিত। আল্লাহ পাক কোনো জালেমকে ছেড়ে দেন না। আল্লাহর গজব থেকে রক্ষা পেতে হলে এসব অমানবিক কর্মকান্ড বন্ধ করুন।

পড়েছেনঃ 41 জন