Rahmania Madrasah Sirajganj

উলামায়ে কিরাম যারা ভ্যাকসিন নিয়েছেন!

দেশের মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে করোনার ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু করেছে সরকার। ইতোমধ্যে প্রায় ১ কোটি ৪০ লাখের বেশি মানুষ করোনা (কোভিড-১৯) টিকার আওতায় এসেছেন বলে জানা গেছে। আগামী শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত বিস্তৃত সপ্তাহব্যাপী করোনার টিকাদান কর্মসূচি। প্রথম দিন প্রায় ৩২ লাখ টিকা দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে সরকার।

করোনার ভ্যাকসিন নেওয়া নানা পেশার মানুষের মধ্যে রয়েছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমগণ। তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান মুহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমুদুল হাসান। তিনি গত ১১ জুলাই ফাইজারের প্রথম ডোজ নিয়েছেন।ভ্যাকসিন নেওয়া আলেমদের মধ্যে আরো আছেন বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান, ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম, আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ। তিনি গত ১ আগস্ট টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন।

আরো ভ্যাকসিন নিয়েছেন তানযীমুল মাদারিসিদ দ্বীনিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও বসুন্ধরা মাদরাসার মহাপরিচালক মুফতি আরশাদ রাহমানী। তিনি ইতোমধ্যে করোনা দুই ডোজই নিয়েছেন।গত ২৩ জুলাই মডার্নার প্রথম ডোজ নিয়েছেন রাজধানীর শাইখ যাকারিয়া ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারের মহাপরিচালক মুফতি মিজানুর রহমান সাঈদ। চলতি মাসে তার ২য় ডোজ নেওয়ার কথা রয়েছে।ভ্যাকসিন নেওয়া আলেমদের মধ্যে আরো আছেন জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড বাংলাদেশের সহ-সভাপতি, তাহাফফুজে মাদারিসে কওমিয়া বাংলাদেশের যুগ্ম আহ্বায়ক ও দারুল উলুম রামপুরার মোহতামিম মাওলানা ইয়াহইয়া মাহমুদ।জনসচেতনতা তৈরিতে আরো ভ্যাকসিন নিয়েছেন ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান ও মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ।

জুলাই-এর ২৯ তারিখে মডার্নার প্রথম ডোজ নিয়েছেন জাতীয় দ্বীনি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বাংলাদেশের মহাসচিব ও আল হাইয়াতুল উলিয়ার সদস্য মুফতি মোহাম্মদ আলী।১ লা আগস্ট করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন রাজধানীর জামিয়া মাহমুদীয়া ঈসহাকীয়া মানিকনগরের শাইখুল হাদিস আল্লামা আব্দুল কুদ্দুস।

এছাড়াও বৃহস্পতিবার ( ৫ আগস্ট) করোনার টিকা নিয়েছেন গওহরডাঙ্গা মাদরাসার মোহতামিম, খাদেমুল ইসলাম বাংলাদেশের আমীর ও কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড গওহরডাঙ্গার সভাপতি মুফতি রুহুল আমীন সাহেব। টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনি টিকা গ্রহণ করেন।এদিকে গত ২৭ জানুয়ারি বাংলাদেশে প্রথম আলেম হিসেবে করোনার টিকা নিয়েছিলেন দাতব্য প্রতিষ্ঠান আল-মারকাজুল ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মুফতি হামজা ইসলাম। (৫ আগস্ট) বৃহস্পতিবার ২য় ডোজও নিয়েছেন বলে আওয়ার ইসলামকে জানিয়েছেন তিনি।জনসচেতনতা তৈরিতে প্রথম সারির আলেমদের মধ্যে আরো ভ্যাকসিন নিয়েছেন তরুণ আলেম সাংবাদিক মুফতি এনায়েতুল্লাহ। তিনি গত ফেব্রুয়ারির ১০ তারিখে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে আসা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন। এর ৬০ দিন পর এপ্রিলের ১০ তারিখে নিয়েছিলেন ২য় ডোজ।

করোনার টিকার প্রথম ডোজ নেওয়া আলেমদের মধ্যে আরো আছেন, বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার সহসভাপতি মাওলানা শামসুল হুদা খান, বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা ঢাকা মহানগরীর নির্বাহী সভাপতি মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন, বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার আন্তর্জাতিক বিষয় সম্পাদক ব্যারিস্টার মাওলানা জুনুদ উদ্দীন মাকতুম ও বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার সাহিত্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক, জামিআ ইকরা বাংলাদেশের সিনিয়র মুহাদ্দিস মুফতি ফয়জুল্লাহ আমান কাসেমীসহ আরো অনেকে।এছাড়াও ভাইরাস থেকে সুরক্ষায় দেশব্যাপী ভ্যাকসিন নিয়েছেন আরো অনেক তরুণ ও প্রবীণ আলেম। ভ্যাকসি নিতে আরো অনেকেই নিবন্ধন করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া চলছে। সরকার নির্ধারিত শর্ত ও বয়সসীমা মেনে সুরক্ষা ওয়েবসাইটে (surokkha.gov.bd) নিবন্ধনের মাধ্যমে সহজেই টিকা গ্রহণ করতে পারছে মানুষ।

পড়েছেনঃ 433 জন