Rahmania Madrasah Sirajganj

ইমাম আযম আবু হানিফা রহ. এর ব্যক্তিত্ব, -মুফতি মিজানুর রহমান নুমানী দা. বা.

ইমাম আযম আবি হানিফা রা. মহান সালেহিন সালাফদের একজন।
তিনি ইমাম চতুষ্টয়ের একমাত্র ইমাম যিনি মহান সাহাবীদের সাক্ষাৎ লাভে তাবেঈদের কাতারে অধিষ্ঠিত হয়েছেন।

أبو حنيفة النعمان 3 : أخلاقه وصفاته :
اتصف أبو حنيفة بصفات تجعله في الذروة العليا بين العلماء، منها: أحد التابعين : يُعد الإمام أبو حنيفة تابعياً من التابعين، قال أبو حنيفة: «لقيت من أصحاب رسول الله سبعة وهم: (١)أنس بن مالك، (٢)وعبد الله بن جزء الزبيدي، (٣)وجابر بن عبد الله،(٤) ومعقل بن يسار، (٥)وواثلة بن الأسقع،(٦) وعائشة بنت عجرد ،(٧) وعبد الله بن أنيس، رضي الله عنهم».
ثم روى له عن أنس بن مالك ثلاث أحاديث و عن إبن جزء الزبيدي حديثأ وعن جابر حديثأ وعن واثلة حديثين وعن عبد الله بن أبي أوفي حديثأ وعن عائشة بنت عجرد حديثأ وعن عبد الله بن أنيس حديثأ ـ

ইমাম আবু হানিফা রহঃ বলেনঃ— আমি রাসুলুল্লাহ সঃ এর সাতজন সাহাবীর সাক্ষাৎ লাভ করেছি ৷ তারা হলেন:-
১)আনাস ইবনে মালেক রাঃ;
২)আব্দুল্লাহ ইবনে জুঝ আঝ জুবাইদী রাঃ;
৩)জাবির ইবনে আব্দুল্লাহ রাঃ;
৪)মা’ক্বুল ইবনে ইয়াসার রাঃ;
৫)ওয়াসিলাহ ইবনে আসক্বহ রাঃ;
৬)আয়িশাহ বিনতে আজরাদ রাঃ;
৭)আব্দুল্লাহ ইবনে আনাস রাদ্বিআল্লাহু আনহুম ৷

এরপরে বলেনঃ- আনাস রাঃ থেকে তিনটা, ইবনে জুজ আঝজুবাইদি রাঃ থেকে একটা; জাবির রাঃ থেকে একটা; ওয়াসিলাহ রাঃ থেকে দুইটা; মা’কুল রাঃ আয়িশাহ রাঃ এবং আব্দুল্লাহ ইবনে আনাস রাঃ দের থেকে একটা করে হাদীস বর্ননা করেছি ৷৷

তবে, আরো কিছু কিছু কিতাবে সাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনে আবু আউফ রাঃ সহ আটজন সাহাবীর সাক্ষাতের বর্ননা এসেছে ৷৷

(তাবিদ্বুস সহিফাহ বি-মানাক্বিবী আবু হানিফা রহঃ পৃষ্ঠা:- ৩৩)

✍️উক্ত সাহাবীদের থেকে ইমাম আবু হানিফা রা. যেসব হাদিস বর্ণনা করেছেন।

وروى عن أحمد ابن الصلت الحمانى، عن بشر بن الوليد، عن أبى يوسف، عن أبى حنيفة: سمعت أنس ابن مالك يقول: سمعت النبى – صلى الله عليه وسلم – يقول: “الدال على الخير كفاعله، والله يحب إغاثة اللهفان”

ইমাম আবু হানিফা রহঃ বলেন:— আমি আনাস বিন মালেক রাঃ কে বলতে শুনেছি, তিনি বলেনঃ তিনি রাসুলুল্লাহ সঃ কে বলতে শুনেছেন: সৎকাজের পথপ্রদর্শক উক্ত কাজ সম্পাদনকারীর সমতুল্য। আর
আল্লাহ গরীবদের সাহায্যকারীকে ভালোবাসেন ৷

(শরহু আসামীর রিজাল মা’নিল আছার, পৃঃ ৩/১২৩
তাবিদ্বুস সহিফাহ বি-মানাক্বিবী আবু হানিফা রহঃ পৃষ্ঠা:- ৩৫)


🌻সাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনে জুবাইদী রাঃ এর সাথে সাক্ষাৎ এবং হাদীস বর্ননাঃ—

أَبِي يُوسُفَ قَالَ: سَمِعْتُ أَبَا حَنِيفَةَ يَقُولُ: حَجَجْتُ مَعَ أَبِي سَنَةَ سِتٍّ وَتِسْعِينَ، وَلِي سِتَّةَ عَشَرَ سَنَةً، فَإِذَا أَنَا بِشَيْخٍ قَدِ اجْتَمَعَ عَلَيْهِ النَّاسُ، فَقُلْتُ لِأَبِي: يَا أَبَهْ، مَنْ هَذَا الشَّيْخُ؟ قَالَ: هَذَا رَجُلٌ قَدْ صَحِبَ مُحَمَّدًا صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، يُقَالُ لَهُ: عَبْدُ اللَّهِ بْنُ الْحَارِثِ بْنِ جَزْءٍ الزُّبَيْدِيُّ، فَقُلْتُ: فَأَيُّ شَيْءٍ عِنْدَهُ؟ قَالَ: أَحَادِيثُ سَمِعَهَا مِنَ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، فَقُلْتُ لَهُ: قَدِّمْنِي إِلَيْهِ حَتَّى أَسْمَعَ مِنْهُ، فَتَقَدَّمَ بَيْنَ يَدَيَّ، فَسَمِعْتُهُ يَقُولُ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «مَنْ تَفَقَّهَ فِي دِينِ اللَّهِ كَفَاهُ اللَّهُ عَزَّ وَجَلَّ، وَرَزَقَهُ مِنْ حَيْثُ لَا يَحْتَسِبُ»

ইমাম আবু হানিফা রহঃ বলেন: আমি ষোল বছর বয়সে আমার আব্বার সাথে হজ্জে গিয়েছিলাম ৷ যখন আমি একজন শায়েখকে দেখলাম লোকজন একত্রিত হয়ে তাকে ঘিরে ধরে রেখেছে ৷গরীব আমি আব্বা কে জিজ্ঞেস করলামঃ আব্বা! ঐ শায়েখটি কে?? আব্বা বললেনঃ উনি মুহাম্মদ সঃ এর একজন সাহাবী ৷ উনি হলেন- আব্দুল্লাহ ইবনে হারেস বিন জুঝউঝ যুবাঈদী রাঃ ৷ আমি বললাম: উনার নিকটে কী আছে? আব্বা বললেনঃ উনার নিকটে রয়েছে হাদীসসমুহ,যেগুলো তিনি রাসুলুল্লাহ সঃ থেকে শুনেছেন ৷ আমি বললামঃ আমাকে উনার কাছে নিয়ে যান,যাতে করে আমিও হাদীসগুলো শুনতে পারি !! আব্বা হাত ধরে আমাকে এগিয়ে নিয়ে গেলেন ৷ আমি শুনতে পেলাম, সাহাবী আব্দুল্লাহ আয যুবাঈদী রাঃ বলছেন:— রাসুলুল্লাহ সঃ ইরশাদ করেনঃ- যে ব্যক্তি দ্বীনের পান্ডিত্ব অর্জন করে, তার জন্য আল্লাহ তা’য়ালাই যথেষ্ঠ ৷ এবং আল্লাহ তাকে এমন উৎস থেকে রিযিক্ব দিবেন, যা সে কল্পনাও করতে পারবে না।

(মুসনাদে আবু হানিফা রিওয়ায়েতী আবু নুয়াঈম, পৃষ্ঠাঃ ১/২৫)


🌻আয়িশাহ বিনতে আজরাদ রাঃ থেকে হাদীস বর্ননা:-

قال أبي سعيد السمان حدثنا أبو محمد عبد الله بن كثير الرازي حدثنا عبد الرحمن بن أبي حاتم الرازي حدثنا عباس بن محمد الدوري حدثنا يحيي بن معين عن أبو حنيفة أنه سمع عائشة بنت عجرد رضي الله عنها تقول رسول الله ﷺ «أكثر جند الله في الأرض الجراد لا أكله ولا أحرمه »

ইমাম আবু হানিফা রহঃ বলেন: আমি আয়িশাহ বিনতে আজরাদ রাঃ থেকে শুনেছি, তিনি বলেন ৷ রাসুলুল্লাহ সঃ বলেছেনঃ আল্লাহর এমন বহু সৃষ্টজীব প্রাণী আছে, যা আমি খাইও না এবং হারামও বলি না।

(তাবিদ্বুস সহিফাহ বি-মানাক্বিবী আবু হানিফা রহঃ পৃষ্ঠা:- ৩৭)


🌻সাহাবী ওয়াসিলাহ ইবনে আসক্বহ রাঃ থেকে হাদীস বর্ননাঃ—

قال أبو معشر أنا أبو عبد الله حدثنا إبراهيم حدثنا أبو بكر الحنفي حدثنا أبو سعيد الحسين بن أحمد حدثنا علي بن أحمد بن الحسين البصري حدثنا أحمد بن عبد الله بن حرام حدثنا إسماعيل بن حرام حدثنا المظفربن منهل حدثنا موسي بن عيسي بن المنذر الحمصي حدثنا أبى حدثنا إسماعيل بن عياش عن ابو حنيفة عن واثلة بن الأسقع أن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال: «دع ما يريبك إلي ما لا يريبك» و به عن واثلة بن الأسقع عن رسول الله صلى الله عليه وسلم قال: «لا تظهر الشماتة لا خيك فيعا فيه الله و يبتليك»

ইমাম আবু হানিফা রহঃ সাহাবী ওয়াসিলা ইবনুল আসক্বহ’ (রাঃ) থেকে বর্ননা করেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ
“যে বিষয়ে তোমার সন্দেহ হয়, তা ছেড়ে দিয়ে যাতে সন্দেহের সম্ভাবনা নেই তা গ্রহণ কর।”
আরও বর্ননা করেছেন ওয়াসিলা ইবনুল আসক্বহ’ (রাঃ) থেকে,তিনি রাসুলুল্লাহ সঃ থেকে বর্ননা করেছেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ
“তোমার কোন ভাইয়ের বিপদে তুমি আনন্দ প্রকাশ করো না। অন্যথায় আল্লাহ্‌ তা’আলা তাকে দয়া করবেন এবং তোমাকে সেই বিপদে নিক্ষিপ্ত করবেন।”

(তাবিদ্বুস সহিফাহ বি-মানাক্বিবী আবু হানিফা রহঃ পৃষ্ঠা:- ৩৭)


🌻 আব্দুল্লাহ ইবনে আবু আউফ রাঃ থেকে বর্ননাঃ-

أخبرنا أبو عبد الله حدثنا أبو إبراهيم أنا أبو بكر الحنفي حدثنا أبو سعد السمان حدثنا محمد بن موسي حدثنا محمد بن عياش الجلودي عن التمتام يحيي بن القاسم عن أبو حنيفة سمعت عبد الله بن أبي أوفي يقول سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول: «من بنى لله مسجدا ولو كمفحص قطاة بنى الله له بيتا في الجنة »

ইমাম আবু হানিফা রহঃ বলেন, আমি আব্দুল্লাহ বিন আবু আউফ রাঃ কে বলতে শুনেছি,তিনি বলেন ৷ তিনি রাসুলুল্লাহ সঃ কে বলতে শুনেছেন:- রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন, যে ব্যক্তি আল্লাহ্‌র জন্য টিড্ডির ঢিবির ন্যায় বা তার চাইতেও ক্ষুদ্র একটি মসজিদ নির্মাণ করে, আল্লাহ তার জন্য জান্নাতে একটি ঘর নির্মাণ করেন।

(তাবিদ্বুস সহিফাহ বি-মানাক্বিবী আবু হানিফা রহঃ পৃষ্ঠা:- ৩৭)


🌻সাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনে আনাস রাঃ থেকে বর্ননাঃ—

قال قال أبو معشر أخبرنا أبو يوسف عبد الله حدثنا ابو إبراهيم حدثنا أبو بكر الحنفي حدثنا أبو سعيد السمان حدثنا أبو علي الحسين بن علي بن محمد بن إسحاق اليماني حدثنا أبو حسن علي بن بأبوبه الأسواري حدثنا أبو داود الطيالسي عن أبو حنيفة قال: ولدت سنة ثمانين وقدم عبد الله بن أنيس الكوفة سنة أربع و تسعين ورأيته وسمعت منه وأنا إبن عشر سنة سمعته يقول قال رسول الله ﷺ «حبك الشيء يعمي ويصم»
ইমাম আবু হানিফা রহঃ বলেন:- আমি যখন দশ বছর বয়েসী,তখন আব্দুল্লাহ ইবনে আনাস রাঃ থেকে শুনেছি, তিনি বলেনঃ রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম)বলেছেনঃ কোন বস্তুর প্রতি তোমার (বাড়াবাড়ি রকমের) ভালোবাসা তোমাকে অন্ধ ও বধির করে দিতে পারে।

(তাবিদ্বুস সহিফাহ বি-মানাক্বিবী আবু হানিফা রহঃ পৃষ্ঠা:- ৩৮)

💠ইমাম আইনি রহ. বলেনঃ

كان أبو حنيفة، رضى الله عنه، من سادات التابعين، رأى أنس بن مالك، ولا يشك فيه إلا جاهل وحاسد قال ابن كثير فى تاريخه: أبو حنيفة كان أجدر العلماء، وأحد الأئمة الأربعة أصحاب المذاهب المتبعة، وهو أقدمهم وفاة؛ لأنه أدرك عصر الصحابة، ورأى أنس بن مالك قيل: وغيره. وذكر الخطيب فى تاريخ بغداد أن أبا حنيفة رأى أنس بن مالك. وذكر المزى فى التهذيب أنه رأى أنس بن مالك، وكذا ذكر الذهبى فى الكاشف، وغيرهم من العلماء،

শায়েখ বদরুদ্দিন আইনি রহঃ বলেন:—
আবু হানিফা রাঃ ছিলেন তাবেঈদের মধ্যে অন্যতম ৷ তিনি সাহাবী আনাস রাঃ থেকে বর্ননা করেছেন ৷৷৷ একমাত্র মূর্খ এবং হিংসুক ব্যতিত এটার ব্যপারে অন্য কেউ সন্দেহ পোষন করে না ৷
ইমাম ইবনে কাসির রহঃ তার জীবনীতে বলেছেনঃ- আবু হানিফা রহঃ আলেমদের মধ্যে সবচাইতে যোগ্যতর এবং প্রতিষ্ঠিত চার মাযহাবের ইমামদের একজন ছিলেন ৷ তিনি অন্যান্য ইমামদের তুলনায় অনেক পূর্বে ইন্তেকাল করেছিলেন বলে সাহাবীদের যুগ দেখতে পেয়েছিলেন ৷ আর তিনি আনাস ইবনে মালেক রাঃ থেকে হাদীস বর্ননা করেছেন ৷৷ আরও বলা হয় যে তিনি অন্য সাহাবীকেও দেখেছেন। খাতীব বাগদাদী রহঃ তারীখে বাগদাদ গ্রন্থে উল্লেখ করেছেন যে, আবূ হানীফা রহঃ আনাস ইবনে মালিককে দেখেছেন। মিয্যী রহঃ তাঁর তাহযীবুল কামাল গ্রন্থে উল্লেখ করেছেন যে, তিনি আনাস ইবন মালিককে দেখেছেন। যাহাবী রহঃ তাঁর ‘আল-কাশিফ’ গ্রন্থে বিষয়টি উল্লেখ করেছেন। অন্যান্য আলিমও একই কথা লিখেছেন।’’

(শরহু আসামীর রিজাল মা’নিল আছার, পৃঃ ৩/১২২)

পড়েছেনঃ 114 জন